৪৩ তম বিসিএস

করোনার মধ্যেই আসছে ৪৩ তম বিসিএস এর সার্কুলার

করোনার মধ্যেই আসছে ৪২ ও ৪৩ বিসিএস এর প্রজ্ঞাপন, যার মধ্যে ৪২তম বিসিএস হবে বিশেষ এবং ৪৩ তম বিসিএস সাধারণ। ৪২তম বিশেষ বিসিএস এর মাধ্যমে শুধুমাত্র চিকিৎসক নেওয়া হবে ২ হাজার। অন্যদিকে ৪৩তম বিসিএসে বিভিন্ন ক্যাডারে ১ হাজার ৮১৪ জন কর্মকর্তা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পিএসসি।

জনপ্রশাসন ও পিএসসি সূত্রের মাধ্যমে জানা গেছে, আজ (২৩ নভেম্বর, ২০২০) সোমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পিএসসিতে ৪৩তম সাধারণ বিসিএস এর জন্য মোট ১ হাজার ৮১৪ পদের চাহিদা পাঠিয়েছে। এতে শিক্ষা ক্যাডার নেওয়া হবে সবচেয়ে বেশি। শিক্ষায় পদসংখ্যা থাকছে ৮৪৩টি। এ ছাড়া প্রশাসনে ৩০০, পুলিশে ১০০, পররাষ্ট্রে ২৫, অডিটে ৩৫, ট্যাক্সে ১৯, কাস্টমসে ১৪, সমবায়ে ২০, ডেন্টাল সার্জন ৭৫ জন এবং অন্যান্য ক্যাডারে ৩৮৩ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে।

অন্যদিকে, ৪২তম বিশেষ বিসিএসে ২ হাজার চিকিৎসকের নিয়োগের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করেছে পিএসসি। পিএসসি সূত্র জানিয়েছে, বিশেষ বিসিএসে নিয়োগ দিতে হলে বিধিমালা সংশোধন করতে হয়, যে প্রক্রিয়া তারা শেষ করেছে। বুধবার পিএসসি বিশেষ সভা আহ্বান করেছে, সেখানে ৪২তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের তারিখ চূড়ান্ত হবে। আর এর পরের সপ্তাহেই ৪৩তম বিসিএস এর বিষয়ে আলোচনা করবে পিএসসি।

এদিকে ৪১তম বিসিএসে প্রিলিমিনারি পরীক্ষার অপেক্ষায় আছেন সাড়ে চার লাখের বেশি প্রার্থী। গত বছরের ২৭ নভেম্বর ৪১তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে পিএসসি। যেখানে বিভিন্ন পদে ২ হাজার ১৩৫ কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়ার কথা রয়েছে। এ ছাড়া ৪০তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা নিয়েছে পিএসসি। এখন মৌখিক পরীক্ষার দিন ঘোষণার অপেক্ষায় আছেন চাকরি প্রার্থীরা।


তিনটি বিসিএস নিয়ে পিএসসির কার্যক্রম কেমন হওয়া উচিত, এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার বলেন, “দুটি নতুন বিসিএসের খবর চাকরিপ্রার্থীদের জন্য একটি সুখবর। এতে চাকরির বাজারে গতি আসবে। যেহেতু এখন দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ, তাই পিএসসি সরকারের স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৪১তম বিসিএসের পরীক্ষা নিয়ে নিতে পারে। প্রতিদিন সরকারের কর্মকর্তারা অবসর নিচ্ছেন। সরকারের কর্মকর্তা দরকার আছে। এটি মাথায় রেখে সব বিসিএসের কার্যক্রম এগিয়ে নেওয়াই হবে বুদ্ধিমানের কাজ”।

error: Content is protected !!